সারা দেশে প্রাপ্ত আকর্ষণীয় কিছু ইয়ারফোন এবং হেডফোন

গান শুনতে পছন্দ করেন না, খুঁজলে এমন কয়জন আজকাল পাওয়া যাবে? গান শোনা ছাড়াও মুভি বা টিভি সিরিজপ্রেমী মানুষের অভাব নেই। অনেকেই সারাদিন ইউটিউব ব্রাউজ করেন, দেখেন পছন্দের বিভিন্ন মেকআপ, গান, রান্না, লাইফ হ্যাকস ভিডিও ইত্যাদি।

উপরে বলা প্রতিটি কাজের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিসটি কী? হ্যাঁ, অবশ্যই ল্যাপটপ বা মোবাইল ফোন। কিন্তু তারপর? তারপরের জিনিসটি হলো হেডফোন এবং ইয়ারফোন। আমাদের আজকের আলোচনায় উঠে আসবে ৫০০০-১০০০০ টাকার মধ্যে ভালো মানের কিছু ইয়ারফোন এবং হেডফোনের কথা, সেগুলো কোথায় পাওয়া যাবে এবং এর বিশেষত্ব।

১. শাওমি মি গেমিং হেডসেট

গেইম খেলতে পছন্দ করেন এমন তরুণ-তরুণীদের জন্য বেশ কম মূল্যে একটি হেডসেটের নাম শাওমি মি গেমিং হেডসেট। ৩.৫ মিমি. জ্যাক বিশিষ্ট এই হেডসেট, মোবাইল ফোন এবং কম্পিউটার দুটোতেই ব্যবহার করা যাবে। এর স্টেরিও সাউন্ড সিস্টেম আপনার গেমিং অভিজ্ঞতাকে আরও এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে।  এর ৭.১ ভার্চুয়াল সারাউন্ড, ডুয়াল নয়েজ ক্যান্সেলিং মাইক্রোফোন, ৪০ মিমি. ডাইনামিক ড্রাইভার মিলে আপনাকে এমন একটি পরিবেশ সৃষ্টি করে দেবে যেন আপনি আপনার কম্পিউটার বা ফোনে বাজতে থাকা ওই সুর বা গেইমের জগতে সম্পূর্ণ ভাবে হারিয়ে যাবেন।

মি গেমিং হেডসেট; Source: vopmart

হেডসেটের প্রতিটি কাপ দুটি অংশে বিভক্ত। ভেতরের অংশটি ধাতব এবং উপরের গোল অংশটি প্লাস্টিকের তৈরি। দুটি কাপেই লেফট এবং রাইট সাইড ভাগ করা আছে। কাপগুলো সহজেই ঘুরানো, ভাঁজ করা এবং গুটিয়ে ফেলা যায়।

আরও বিস্তারিত জানতে- লিংক

বাংলাদেশেই এই হেডসেট কিনতে পারছেন এখান থেকে – লিংক

বর্তমান মূল্য ৬১৬০ টাকা।

২. মি এয়ার ডটস প্রো

মি এর আরেকটি চমক হলো এয়ার ডটস প্রো। সাদা রঙের এই ইন-ইয়ার ইয়ারফোনটি যে কারও নজর কাড়তে বাধ্য। এই বছর জানুয়ারিতে বাজারে আসা এই ব্লুটুথ ইয়ারফোনটিকে অনেকেই অ্যাপলের জন্য একটি চ্যালেঞ্জ মনে করছেন। অ্যাপলের ফোন, এন্ড্রয়েড স্মার্ট ফোন এবং উইন্ডোজ নোটবুকগুলোর সাথে এটি ব্যবহার করা যাবে।

মি এয়ার ডটস প্রো; Source: Xiaomi Today

ইয়ার বাড দুটি সম্পূর্ণ আলাদা ভাবে কাজ করতে পারে কোনো রকম বাঁধা ছাড়াই। নিওডাইমিয়াম আয়রন বোরনের তৈরি ৭ মিমি. ডায়ামিটার বিশিষ্ট টাইটেনিয়াম ডায়াফ্রাম, এই বাডসের সাউন্ড সিস্টেমকে আরও উন্নত করে তুলেছে। ফোনকলের ক্ষেত্রে এটি নিজে থেকেই নয়েজ ক্যান্সেল করে দেয়। ভয়েজ অ্যাসিসট্যান্ট এবং মিউজিকের জন্য আরও অনেক ফিচার আছে এতে।

ইয়ার বাড দুটি আলাদা ভাবে কাজ করে; Source: Wylsa.com

শাওমির দাবি, একবার ফুল চার্জ দেয়া হলে এয়ার প্রো ডটস পুরো ১০ ঘন্টা আপনাকে নিরবিচ্ছিন্ন সেবা দেবে এবং ফুল চার্জ হতে এটি সময় নেয় মাত্র ১ ঘন্টা!

আরও বিস্তারিত জানতে – লিংক

এই ইয়ার বাডস কিনতে চাইলে – লিংক

বর্তমান মূল্য ৯২৪৯ টাকা।

৩. জেবিএল রিফ্লেক্ট মিনি টু

সকালে জগিং করেন? অথবা খেলাধুলার প্র্যাক্টিসে গান শুনতে ভালোবাসেন? তাহলে আপনার জন্য রয়েছে জেবিএল এর রিফ্লেক্ট মিনি টু ইয়ারফোন। এই ইয়ারফোনের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হলো এটি সোয়েট প্রুফ। অর্থাৎ ইয়ারফোন কানে থাকা অবস্থায় আপনি ঘেমে গেলেও চিন্তিত হবার কিচ্ছু নেই। আইপিএক্স-ফাইভ রেটিং প্রাপ্ত পানি বিরোধী উপাদান দিয়ে এই ইয়ারফোন তৈরি করা হয়েছে তাই কানে লাগিয়ে জগিং করুন যতক্ষণ খুশি।

জেবিএল রিফ্লেক্ট মিনি টু; Source: cNet

এই ইয়ারফোনে আপনি পাচ্ছেন থ্রি-রিমোট বাটন অর্থাৎ ইয়ারফোন দিয়ে ফোনের কিছু ফিচার আপনি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। সিলিকনের তৈরি ইয়ার বাডস আপনার কানে কোনোরকম অস্বস্তির সৃষ্টি করবে না বরং ইন-ইয়ার বাডস হলেও আপনি কানে কোনোরকম ব্যথা অনুভব করবেন না।

চারটি আকর্ষণীয় রঙে জেবিএল রিফ্লেক্ট মিনি টু; Source: cNet

এই ইয়ারফোন কিনলে সাথে আপনি পাবেন আলাদা করে তিন জোড়া হুক, তিন জোড়া ইয়ার টিপস, ইউএসবি চার্জিং ক্যাবল এবং একটি কেস যাতে আপনি ইয়ারফোনটি ব্যবহার শেষে গুছিয়ে রাখতে পারবেন। এটি বাজারে এসেছে আকর্ষণীয় চারটি রঙে- কালো, নীল, সাদা এবং হালকা হলুদ।

আরও বিস্তারিত জানতে ঘুরে আসুন এই লিংকে

এই ইয়ারফোন কিনতে চাইলে অর্ডার করুন এখানে

বর্তমান বাজার দর ৮০০০ টাকা।

৪. জেবিএল এন্ডুরেন্স ডাইভ

শুধু ব্যায়ামের সময়ই নয় এখন আপনি সাতার কাটার সময়ও সাথে রাখতে পারেন আপনার পছন্দের গান এবং সুরগুলো। অবাক লাগলেও সত্যি যে জেবিএলের আরেকটি চমকের নাম জেবিএল এন্ডুরেন্স ডাইভ। আইপিএক্স-সেভেন রেটিং এর এই ইয়ারফোনটির একটিমাত্র কমতি হলো এর ব্যাটারি লাইফ ৮ ঘন্টা যা বর্তমান বাজারে আসা ব্লুটুথ ইয়ারফোনের তুলনায় দুই ঘন্টা কম।

এই ইয়ারফোনের ইয়ারবাডস থেকে আপনাকে সরাসরি গান ছাড়তে হবে। অর্থাৎ এর বিল্ট-ইন স্টোরেজ রয়েছে। এর স্টোরেজ ক্ষমতা ১ জিবি অর্থাৎ আপনি প্রায় ২০০টি গান এখানে রেখে দিতে পারছেন । বাডসের সাথে থাকা ইয়ার হুক আপনার কানের পেছন থেকে পেঁচিয়ে ধরে বলে পানিতে ইয়ার ফোন খুলে হারিয়ে যাবার কোনো ভয় নেই। হুকের প্রান্তে ইয়ারবাডস সংযুক্ত করে দিলে ইয়ারফোনের সংযোগ স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এবং খুলে দিলে নিজে থেকে চালু হয়ে যায়। ইয়ারফোনে পজ, স্কিপ, প্রিভিয়াস সং এবং নেক্সট সং বেছে নেয়ার অপশন আছে।

জেবিএল এন্ডুরেন্স ডাইভ; Source: Harvey Norman

আরও বিস্তারিত জানতে হলে দেখুন এখানে

এই ব্লুটুথ ইয়ারফোনকে সঙ্গী করতে চাইলে অর্ডার করুন এখানে

বর্তমান মূল্য ৯০০০ টাকা

৫. অ্যাপল ইন-ইয়ার হেডফোন

হেডফোন বা ইয়ারফোন কি কেবলই এন্ড্রয়েডপ্রেমীদের জন্য? অবশ্যই না। তাই অ্যাপলের এই হেডফোনের কথা দিয়ে শেষ না করলেই নয়। এই ইয়ারফোন দিয়ে আপনি সুরের জগতকে আবিষ্কার করতে পারবেন নতুন করে। অ্যাপলের দাবি, এই ইয়ারফোনে গান শোনার পর আপনি গানের মাঝে এমন কিছু সুর আবিষ্কার করবেন যা হয়তো আগে অন্য ইয়ারফোন বা স্পিকারে শুনতে পাননি। প্রতিটি সিলিকনের নরম ইয়ারবাডসের ভেতরে রয়েছে একটি উফার এবং একটি টুইটার। যার ফলে সব ধরনের গানে আপনি সামঞ্জস্য পূর্ণ বেজ এবং আরও বিস্তারিত সুর শুনতে পাবেন।

অ্যাপল ইন-ইয়ার হেডফোন; Source: Amazon

ইয়ারবাডগুলো কানে ঢোকানোর সাথে সাথে এটি কানের সাথে এঁটে যায়। সেজন্য বাহিরের কোনো বাড়তি শব্দ আর আপনি শুনতে পাবেন না এবং মিউজিকের সম্পূর্ণটাই উপভোগ করতে পারবেন।

ডান কানের ওয়্যারের সাথে থাকা রিমোট কন্ট্রোলিং সিস্টেম; Source: AppleInsider

ডান কানের ওয়্যারের সাথে রয়েছে কন্ট্রোলিং সিস্টেম। আগের গান, পরের গান, পজ, স্কিপ, কলের উত্তর দেয়া, কল কেটে দেয়া, ভয়েজ রেকর্ডিং এই কাজগুলো আপনি করতে পারবেন এই কন্ট্রোলিং পার্ট দিয়ে। সবশেষে ইয়ারফোনের বাহিরের দিকে রয়েছে ম্যাশ স্ট্রাপ নেট। যার ফলে ইয়ারফোনের ভেতরে তেমন ধূলাবালি ঢুকতে পারে না।

বিস্তারিত- লিংক

অর্ডার করুন- লিংক

মূল্য ৬৮০০ টাকা

আগামী পর্বে আরও কিছু হেডফোন এবং ইয়ারফোন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। ততদিন পর্যন্ত এখান থেকে বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের ইয়ারফোনটি।  

Feature Image Source: iMore

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.