নিম পাতা গুঁড়ার কয়েকটি বিস্ময়কর উপকারিতা

নিম পাতার গুণাগুণের কথা কম বেশি সবাই জানে। নিম পাতা অনেক রোগের নিরাময় করে। এছাড়া ত্বকের নানাবিধ সমস্যা দূর করে। নিম গাছ বহুবর্ষজীবী চিরহরিৎ বৃক্ষ। ভারতীয় উপমহাদেশে পাঁচ হাজার বছর ধরে নিমের ব্যবহার হয়ে আসছে। ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধে নিম খুব কার্যকর। নিমকে ১৩০টি রোগের নিরাময়কারী বলা যেতে পারে কারণ এর ১৩০টি ঔষধি গুণ রয়েছে। আমাদের দেশে ছোট বড় সবাই নিম গাছ চেনে। বিজ্ঞানীরা মনে করেন বাড়িতে একটি নিম গাছ থাকলে তার কোনো রোগ বালাই হয় না। হ্যাঁ, নিম মানুষের রোগ প্রতিরোধ করে এবং সুস্থ রাখে। এর অনেক স্বাস্থ্যগত উপকারিতা রয়েছে।

Photo: NDTV Food

নিম পাতা ম্যালেরিয়া দূর, চামড়ার ইনফেকশন দূর, খোসপাঁচড়া দূর, আলসার নিরাময়ে, ডায়াবেটিস নিরাময়ে, এইডস প্রতিরোধে  সাহায্য করে। এছাড়া উঁকুন দূর করতে, চোখ ভালো রাখতে, মাথাব্যথা প্রতিরোধে, ক্যান্সার প্রতিরোধে, রক্ত পরিষ্কার করতে, কৃমি নিরাময় করতে, হৃদরোগ প্রতিকার করতে, দাঁতের যত্নে, বমি বমি ভাব দূর করতে নিম পাতা অগ্রণী ভূমিকা রাখে। নিমের গুণাগুণের কথা বলে শেষ করা যাবে না। স্বাস্থ্যগত দিক ছাড়া নিম রূপচর্চায় ব্যবহৃত হয়। কারণ নিম ত্বক ও চামড়া সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।

ভারতীয় উপমহাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিমের ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। শুধুমাত্র নিমের ঔষধি গুনাগুণ ও সুস্থতার জন্য সারা পৃথিবীব্যাপী নিমের প্রচলন রয়েছে। বাণিজ্যিক ভিত্তিতে নিমের বিভিন্ন পণ্য তৈরি করা হচ্ছে যেমন, সাবান, শ্যাম্পু, ফেসওয়াশ, টুথপেস্ট ইত্যাদি।

নিম পাতা গুঁড়ার উপকারিতা

নিম পাতা স্বাস্থ্যের নানাবিধ উপকার করে। এছাড়া ত্বক ও সৌন্দর্যচর্চায় নিমের ব্যাপক ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। জেনে নিন নিম পাতা গুঁড়ার উপকারিতা সম্পর্কে।

খুশকি দূর করতে

খুশকি চুলের জন্য খুব ভয়ানক। চুলে খুশকি থাকলে মাথার ত্বকে প্রদাহ হতে পারে এবং চুল পড়ে যেতে পারে। অধিক খুশকি হলে মাথা অনেক চুলকায়, যার ফলে ত্বকে ক্ষত সৃষ্টি হয়ে থাকে। সাধারণত শুষ্ক ত্বক, মরা কোষের কারণে খুশকির জন্ম হয়। নিম পাতা খুশকি দূর করতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।

Photo: First Derm

আপনি নিম পাতা গুঁড়া করে, এর সাথে পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে পারেন এবং এই পেস্ট মাথার ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন। ত্রিশ মিনিট পর চুল ধুয়ে ফেলুন। এভাবে নিয়মিত নিম পাতা গুঁড়ার ব্যবহারে আপনি খুশকির হাত থেকে মুক্তি পাবেন।

দাদ

দাদ হওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। ত্বকে ফাঙ্গাসজনিত ইনফেকশনের কারণে দাদ হয়ে থাকে। এটি দেখতে অনেকটা গোলাকার হয়। দাদ বেশ চুলকায়। নিম পাতার ব্যবহারে আপনি এই দাদ থেকে মুক্তি পাবেন, কারণ নিম পাতায় রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টিফাঙ্গাল উপাদান।

দাদ থেকে মুক্তি পেতে নিম পাতা গুঁড়ার সাথে পানি ও কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। তারপর এই পেস্ট দাদযুক্ত স্থানে দিয়ে রাখুন। তারপর দশ পনেরো মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে তুলে ফেলুন। এভাবে বেশ কয়েকদিন ব্যবহার করলে দাদ চলে যাবে এবং ত্বক সুস্থ হয়ে যাবে।

মাথার উঁকুন

উঁকুন মাথায় বাস করে এবং চুলের মারাত্মক ক্ষতি করে। উঁকুন মাথার রক্ত খেয়ে দিনের পর দিন বেঁচে থাকে। যার ফলে মাথার ত্বকে প্রচণ্ড সংক্রমণ দেখা দেয়। নিমের ব্যবহারে মাথার উঁকুনজনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। আপনি যদি উঁকুনের হাত থেকে বাঁচতে চান, তাহলে নিম পাতা গুঁড়ার সঙ্গে পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।

Photo: FOX31 Denver

আপনি চাইলে এর সাথে হেনা দিতে পারেন। পুরো প্যাকটি মাথায় ভালো করে লাগান এবং শুকালে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুই তিনবার ব্যবহার করলে ভালো ফলাফল পাবেন।

ব্রণ দূর

নিমে রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিফাঙ্গাল, অ্যান্টিভাইরাল, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরী উপাদান। এই উপাদানগুলো থাকায় নিমের ব্যবহারে ব্রণ, পিম্পল সহজে দূর হয়। নিমের নানাবিধ উপকারিতার কথা ভেবে আজকাল বাজারে নিমের ফেশওয়াশসহ অনেক পণ্য পাওয়া যায়।

Photo: Saudi Beauty Blog

আপনি যদি বাসায় বসে ব্রণ ও পিম্পল দূর করতে চান, তাহলে নিম পাতা গুঁড়ার সাথে পানি, দই ও মুলতানি মাটি মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট মুখে লাগান এবং শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুই তিনবার এটি ব্যবহার করলে ভালো ফলাফল পাবেন।

পায়ের সংক্রমণ

পায়ে নানা কারণে সংক্রমণ হতে পারে। নিমে নানা উপকারী উপাদান ও ভেষজ গুণাগুণ থাকায় এর ব্যবহারে পায়ের সংক্রমণ থেকে মুক্তি পেতে পারবেন। পায়ের সংক্রমণ দূর করতে নিম পাতা গুঁড়ার সঙ্গে পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। তারপর সেই পেস্ট ক্ষত স্থানে লাগান। নিমে থাকা অ্যান্টিফাঙ্গাল, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান ক্ষত সারাতে দারুণ ভূমিকা রাখে।

সোরিয়াসিস

সোরিয়াসিস একটি ত্বকের রোগ যা অতিরিক্ত কোষ বৃদ্ধির জন্য হয়ে থাকে। এটি হলে ত্বকে চুলকায়, জ্বালা করে। নিম পাতার ব্যবহারে আপনি সম্পূর্ণভাবে এই রোগ থেকে বাঁচতে পারবেন। আপনি যদি নিম পাতা খেতে না পারেন, তাহলে বাহ্যিকভাবে ব্যবহার করুন। এক চা চামচ নিমের গুঁড়া, ১/২ চা চামচ হলুদের গুড়া কুসুম গরম পানির সাথে মিশিয়ে দিনে দুইবার গ্রহণ করুন। এছাড়া নিমের গুঁড়ার সাথে পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে ত্বকে ব্যবহার করুন।

চুল পড়া প্রতিরোধ

বর্তমান সময়ে চুল পড়া সমস্যা এক বিরাট সমস্যা। শতকরা ৯০ ভাগ মানুষের অতিরিক্ত চুল পড়ে। নিম পাতা চুল পড়া প্রতিরোধে দারুণ কাজ করে। চুল পড়া রোধ করার জন্য নিম পাতা গুঁড়ার সঙ্গে পানি মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন।

Photo: ABC News

তারপর এতে ঘৃতকুমারীর জেল মেশান। গোসলের বিশ ত্রিশ মিনিট আগে এই পেস্ট মাথায় লাগান। তারপর গোসল করুন।

ফিচার ইমেজ সোর্সঃ YouTube

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.