জেনে নিন যেসব ভুলের কারণে ওজন কমাতে পারছেন না

সুস্থতাই সকল সুখের মূল। প্রতিটি মানুষের সুস্থ থাকা দরকার। গত কয়েক দশকের গবেষণা থেকে জানা যায় যে, অতিরিক্ত ওজন মানুষকে নানবিধ সমস্যায় ফেলে দিচ্ছে। অফিস আদালত ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে কাজ করার ফলে মানুষের দীর্ঘক্ষণ চেয়ারে বসে কাটাতে হয়, হাঁটাচলা কম হয়। যার ফলে শরীর স্থূল ও মোটা হয়ে যায়, ওজন বেড়ে যায়।

আর বাড়তি ওজন কমানোর জন্য শত দৌড় ঝাঁপ করে মানুষ। নয়ত অতিরিক্ত ওজনের কারণে শরীরের ভর করবে নানাবিধ অসুখ। দেখা যায় ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগের ঝুঁকি, স্ট্রোকসহ নানা সমস্যায় পড়তে হয়। তাই অতিরিক্ত ওজন কমানো খুব প্রয়োজন।

Photo: The Cheat Sheet

তবে ওজন কমাতে গিয়ে অনেকে হরদম ব্যায়াম করা শুরু করে। এমনকি খাওয়া দাওয়া ছেড়ে দেয়। আপনি জানেন কি খাওয়া দাওয়া ছেড়ে দিলে ওজন তো কমবেই না বরং আপনি অসুস্থ হয়ে পড়বেন। অতিরিক্ত কোনো কিছুই ভালো নয়। অতিরিক্ত কাজ, অতিরিক্ত ব্যায়াম, অতিরিক্ত খাওয়া দাওয়া সবকিছুই স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। আপনি হয়তো জানেন না আপনার প্রতিদিনের কিছু কিছু অভ্যাসের কারণে কিংবা ভুলের কারণে আপনি স্লিম হতে পারছেন না, অর্থাৎ ওজন কমাতে পারছেন না। তাহলে জেনে নিন আপনার কোন ভুল অভ্যাসগুলোর কারণে আপনি ওজন কমাতে পারছেন না তা সম্পর্কে।

সকালের খাবার না খাওয়া

আপনি হয়তো ভাবছেন আপনার ওজন আগের তুলনায় অনেক বেড়ে গেছে। স্বাস্থ্য ঝুঁকি বেড়ে গেছে। তাই অধিক সচেতন হতে গিয়ে সকাল কিংবা রাতের খাবার এড়িয়ে চলছেন। তাহলে বলবো আপনার ধারণাটি সঠিক নয়। কারণ গবেষকরা বলেন ভিন্ন কথা।

Photo: Confused Sandals

গবেষকদের মতে, যারা সকালের খাবার খান তারা দ্রুত ওজন কমাতে পারে। আর যারা সকালের খাবার খায় না তাদের ওজন কমে না বরং বাড়ে। এছাড়া গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা বেড়ে যায়। ওজন কমাতে হলে প্রতিবেলা খেতে হবে। তবে অল্প অল্প করে খেতে হবে। যদি অনেক বেশি খাবার খান তাহলে আপনার ওজন তো বাড়বেই। আর পর্যাপ্ত পরিমাণে খাবার খেলে আপনি থাকবেন সম্পূর্ণ সুস্থ।

পর্যাপ্ত পানি পান না করা

প্রতিদিন যারা পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করে তারা সুস্থ থাকে এবং অতিরিক্ত ওজন কমাতে পারে। কারণ প্রচুর পানি খেলে ক্যালরী দহন সহজে হয়। দ্রুত খাবার হজম হয় এবং বিপাকীয় প্রক্রিয়া সঠিক থাকে। গবেষকরা প্রতিদিন প্রচুর পানি পান করার পরামর্শ দেন।

Photo: Women’s Health

কারণ প্রতিদিন এক লিটার করে টানা একবছর পানি খেলে দুই কেজি ওজন কমে। গবেষণা করে তারা এমনটাই ফলাফল জানিয়েছেন। তাই ওজন কমাতে চাইলে প্রচুর পানি পান করুন। আর আজ থেকে কম পানি পান করার অভ্যাস ত্যাগ করুন। পরিবারের সবাইকে পানি পান করায় উৎসাহিত করুন।

রাতে দেরি করে খাওয়া

আমরা অনেকেই ভাবি রাতে ঘুমানোর আগে রাতের খাবার খাবো। অনেকে ঠিক তাই করে। দেখা যায় রাত বারোটা বা একটায় ঘুমালে তার আগে খেলে সাথে সাথে শুয়ে পড়তে হয়। খাবার খেয়ে সাথে সাথে ঘুমিয়ে পড়লে ওজন তো বাড়বেই।

Photo: teamtim trivia

তাই ঘুমানোর অন্তত ৩-৪ ঘন্টা আগে রাতের খাবার খান। এতে ঘুমানোর আগেই খাবার হজম হয়ে যাবে। এবং আপনার শরীরে বাড়তি মেদ জমার সুযোগ পাবে না। আপনি ওজন কমাতে পারবেন এবং সুস্থ থাকতে পারবেন।

না ঘুমানো কিংবা খুব কম ঘুমানো

আপনি কি সারা রাত ফেসবুক বা অন্য কোনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যস্ত থাকেন? কিংবা ইচ্ছে করে ঘুমান না? তাহলে কিভাবে আপনার ওজন কমবে? গবেষকরা মনে করেন রাতে না ঘুমালে কিংবা কম ঘুমালেও শরীরের ওজন বৃদ্ধি পায়।

Photo: Advanced Natural Wellness

আপনি যদি ওজন কমাতে চান তাহলে প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাতে হবে। তবে মনে রাখবেন অতিরিক্ত ঘুম যেন না হয়। কারণ অতিরিক্ত ঘুমালেও ওজন বাড়ে। একজন স্বাভাবিক মানুষের দৈনিক ৬-৭ ঘন্টা ঘুমানো প্রয়োজন।

অতিরিক্ত খাবার খাওয়া

খাবার খেতে বসে চেষ্টা করুন টেলিভিশন, কম্পিউটার কিংবা মোবাইলের দারুণ কোনো অনুষ্ঠান বা সিরিয়াল দেখা থেকে বিরত থাকতে। দেখা যায় মানুষ টেলিভিশন দেখতে দেখতে কখন যে অতিরিক্ত খাবার খেয়ে ফেলেন তা তিনি নিজেও বুঝতে পারে না।

Photo: NPR

তাই খাবার খাওয়ার সময় এসব ডিভাইস থেকে দূরে থাকা শ্রেয়। নয়তো অতিরিক্ত খেলে আপনার ওজন তো কমবেই না বরং বাড়বে। আর ওজন বাড়লে আপনার স্বাস্থ্য ঝুঁকিও বেড়ে যাবে।

কোমল পানীয় ও অ্যালকোহল

বন্ধুদের সাথে বেড়াতে গেলে কিংবা কোনো পার্টিতে গেলে কোমল পানীয়, বিয়ার, অ্যালকোহল থেকে বিরত থাকুন। আপনি যদি স্বাস্থ্যের কথা মাথায় না রেখে অমায়িকভাবে কোমল পানীয় খেতে থাকেন তাহলে আপনার ওজন বাড়বে ঠিকই, কমবে না।

Photo: Portum Restaurant

কারণ বাজারের কোমল পানীয় ও অ্যালকোহলে প্রচুর কার্বনডাইঅক্সাইড থাকে যা স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ায়। তাই এসব কোমল পানীয়, বেভারেজ, বিয়ার, অ্যালকোহলকে না বলুন।

সারাদিন চেয়ারে বা ডেস্কে বসে থাকা

আপনি জানেন কি আপনার ওজন বাড়ার আরেকটি প্রধান ও অন্যতম কারণ হলো সারাদিন ডেস্কে বা চেয়ারে বসে থাকা? হ্যাঁ, গবেষকরা তাই বলেন। সারাদিন চেয়ারে বসে থাকলে, কাজ করলে হাঁটাচলা হয় না, শরীর সঞ্চালন হয় না। শরীরের ক্যালরি বার্ন হয় না।

Photo: irodacafe.hu

যার ফলে ওজন অতিরিক্ত পরিমাণে বেড়ে যায়। আপনি যদি ওজন কমাতে চান তাহলে কাজের ফাঁকে ফাঁকে আপনাকে বিরতি নিতে হবে, আড়মোড়া কাটতে হবে, হালকা ব্যায়াম করতে হবে, হাঁটার অভ্যাস করতে হবে। নয়তো ওজন কমানো সম্ভব হবে না। আর যথাসম্ভব লিফট বর্জন করে সিড়ি দিয়ে উপরে ওঠার চেষ্টা করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.