পুরুষের মেকআপ করার পদ্ধতি

মেকআপ যে শুধুই নারীদের জন্য এই ধারণা থেকে বের হয়ে আসার সময় হয়ে গিয়েছে। ‘মেকআপ’ শব্দটির অর্থই হলো কোন কমতিকে চাপা দেয়া। কমতি শুধু নারীদের নয় পুরুষদেরও হতে পারে। কিন্তু মেকআপ প্রসাধনী শুধুমাত্র নারীদের ব্যবহারযোগ্য ভেবে হয়তো পুরুষেরা খুঁত বয়ে বেড়াচ্ছেন।

হালকা একটু মেকআপে যদি আপনার গতকাল রাতে ওঠা ব্রণের দাগ কিংবা প্রায় সপ্তাহ খানেক ধরে রাত জেগে করা প্রজেক্টের দেয়া উপহার স্বরূপ চোখের নিচে কালো দাগ ঢেকে দেয়া যায় তাহলে ক্ষতি কোথায়? নারী পুরুষ নির্বিশেষে সবাই চায় নিজেকে সুন্দর করে উপস্থাপন করতে। তাহলে এই ক্ষেত্রে পুরুষেরা কেন পিছিয়ে থাকবেন?

চলুন তবে দেখে নেয়া যাক, কীভাবে পুরুষেরাও ত্বকের খুঁত ঢাকতে পারবেন মেকআপ দিয়ে।

১. হাইলাইটার এবং কনটিউরিং

হাইলাইটারের প্রধান কাজ হলো মুখের বিশেষ কিছু জায়গাকে আরো বেশি দর্শনীয় করে তোলা। যেভাবে আপনি হাইলাইটার ব্যবহার করতে পারবেন তা হলো-

  • ভ্রু এর ঠিক নিচে যে জায়গায় ভ্রু একটু উঁচু হয়ে যায় সে জায়গায় হাইলাইটার দিন।
  • চোখের দুই আঙ্গুল নিচে গালের উঁচু হাড়ে হাইলাইটার দিন।
  • দুই চোখের মাঝখান থেকে নাকের ডগা পর্যন্ত হাইলাইটার দিন।
পুরুষদের জন্য কনসিলার; Source: Menaji

মনে রাখবেন হাইলাইটার অবশ্যই আপনার ত্বকের চেয়ে এক শেড হালকা হতে হবে। নারীদের জন্য গ্লিটার হাইলাইটার মানিয়ে গেলেও পুরুষরা ন্যাচারাল হাইলাইটার ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে মেকআপ স্বাভাবিক দেখাবে।

আঙ্গুলের সাহায্যে আলতো করে ত্বকের সাথে হাইলাইটার মিশিয়ে নিন। বেশি জোরে চাপ দিলে আঙ্গুলের সাথে হাইলাইটার উঠে আসতে পারে।

এবার পালা কনটিউরিং এর। কনটিউরিং আপনার মুখে একটি বাড়তি ছায়ার সৃষ্টি করে যার ফলে মুখ আরো চাপা দেখায়।

  • নাকের দুইপাশে অর্থাৎ একেবারে চোখের নিচ থেকে শুরু করে নাকের দুই পাশে ছড়ানো অংশ পর্যন্ত গাঢ় রঙের কনসিলার দিন।
  • গাল বেশি ফোলা হলে কানের পাশ থেকে শুরু করে গালে সাধারণত যেখানে টোল পড়ে ওই অংশ পর্যন্ত টেনে কনসিলার লাগান।
  • কপাল খুব বেশি বড় হলে এক হাতে চুল উপরের দিকে টেনে ধিরে কপালের উপরিভাগে কনসিলার লাগান।

হাইলাইটারের মতো করে কনটিউরিং ও আলতো হাতে শেষ করুন। হাইলাইটার এবং কন্টিউরিং এর রং যেন মিশে না যায় সেদিকে লক্ষ্য রাখুন।

২. বি.বি ক্রিম

বাজারে অনেক ধরনের বি.বি ক্রিম পাওয়া যায়। এগুলো ফাউন্ডেশনের তুলনায় হালকা হয়ে থাকে বলে মুখে লাগালে খুব বেশি পার্থক্য বোঝা যায় না। পুরুষেরা নিশ্চিন্তে বিবি ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন। কনটিউরিং এবং হাইলাইটিং এর পর আঙ্গুলের সাহায্যে অল্প করে বি.বি ক্রিম নিয়ে সারা মুখে লাগিয়ে নিন।

বি.বি ক্রিম; Source: NordStorm

৩. পাউডার এবং ব্রোঞ্জার

এবার মেকআপ সেট করার পালা। যে অংশগুলোতে হাইলাইটার লাগিয়েছেন, অর্থাৎ যে অংশগুলো আপনি বেশি প্রদর্শন করতে চান সেই জায়গাগুলোতে পাউডার লাগান। বাজারে বিভিন্ন রকম মেকআপ সেটিং পাউডার এবং ফেইস পাউডার পাওয়া যায়। যদি ত্বকের সুরক্ষার্থে সেগুলো ব্যবহার করতে না চান তাহলে আপনি বেছে নিতে পারেন বেবি পাউডার অথবা আপনার নিয়মিত ব্যবহার করা ট্যালকম পাউডার।

প্রেসড পাউডার; Source: The Independent

এরপর যে অংশগুলোকে আপনি গাঢ় রাখতে চান সেগুলোতে বুলিয়ে নিন ব্রোঞ্জার। দুই ক্ষেত্রেই আপনি ব্রাশ ব্যবহার করতে পারেন।

৪. খুঁত ঢাকা

মুখের প্রাথমিক মেকআপ করা তো শেষ। এখনও কি মুখে কিছু দাগ দেখা যাচ্ছে? তাহলে আপনার প্রয়োজন হবে কনসিলারের। ত্বকের রং এর সাথে মিলিয়ে কনসিলার বেছে নিন এবং যে সমস্ত জায়গায় প্রয়োজন শুধুমাত্র ওই স্থানগুলোতে এক ফোঁটা করে লাগিয়ে নিন। তারপর আঙ্গুল দিয়ে আলতো করে চেপে চেপে কনসিলার বসিয়ে দিন। আরেকবার পাউডার বুলিয়ে নিতে পারেন ওই জায়গাগুলোতে।

খুঁত ঢাকতে ব্যবহার করুন কনসিলার; Source: Reddit

এছাড়াও কনসিলার ব্যবহার করতে পারেন চোখের নিচে কালো দাগ দূরীকরণে। চোখের নিচে ত্রিভুজাকারে কনসিলার টেনে তারপর আঙ্গুলের সাহায্যে চেপে কনসিলার বসিয়ে দিন। এখানেও আপনার পাউডারের প্রয়োজন হবে। লক্ষ্য রাখবেন অধিক কনসিলার ব্যবহারে যেন চোখের নিচের রং ত্বকের অন্যান্য অংশের চেয়ে বেশি হালকা না হয়ে যায়। নিরাপত্তার জন্য কনসিলারের সাথে আপনি হালকা লাল লিপস্টিক এঁকে নিতে পারেন একই সাথে। দুটি রং মিলে আপনাকে একটি ন্যাচারাল রং দেবে।

৫.  চোখ এবং ভ্রু

যদি চোখ এবং ভ্রুতে কিছু বাড়তি সাজ যোগ করতে চান তাহলে একটি ছোটো চিমটার সাহায্যে বাড়তি এবড়োথেবড়ো ভ্রু তুলে ফেলতে পারেন। তারপর চোখের কোণা থেকে শুরু করে চোখের শেষ কোণা পর্যন্ত হালকা করে ভ্রুয়ের সাথে রং মিলিয়ে লাগাতে পারেন আইভ্রু পেনসিল।

টুইজার দিয়ে তুলে ফেলুন বাড়তি ভ্রু; Source: TheManCompany

এতে আপনার ভ্রুয়ের রঙের অসামঞ্জস্যতা দূর হবে এবং আপনার ভ্রুকে আরও আকর্ষণীয় দেখাবে। চোখের ভিতরে বা আপার ওয়াটার লাইনে হালকা করে কাজল দিতে পারেন। তাহলে আপনার চোখ আগের চেয়েও আরও গভীর দেখাবে কিন্তু দেখে মনে হবে না আপনার চোখে কিছু ব্যবহার করা হয়েছে।

ব্যস, আপনি তৈরি!

বাহির থেকে ফিরে অবশ্যই মুখ ধুয়ে ফেলতে ভুলবেন না। এর জন্য আপনি ব্যবহার করতে পারেন যে কোনো মেকআপ রিমুভার। যদি রিমুভার কেনার ঝামেলায় না যেতে চান তাহলে তুলায় একটু অলিভ অয়েল মেখে তা সারা মুখে হালকা করে ঘষে মেকআপ তুলে নিন। এবার ফেসওয়াশ দিয়ে স্বাভাবিক নিয়মেই মুখ ধুয়ে ফেলুন।

মুখ ধোয়া শেষে একটু ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। এতে করে আপনার ত্বক আর্দ্রতা ধরে রাখবে। কখনই মেকআপ মুখে রেখে ঘুমাতে যাবেন না। এতে করে আপনার ত্বকের ক্ষতি হতে পারে। শোবার আগে হালকা একটু লিপবাম লাগালে আপনার ত্বকের পাশাপাশি ঠোঁটও থাকবে সুরক্ষিত।

প্রসাধনীর কোনো লিঙ্গভেদ নেই; Source: Glamour

মেকআপ শুধু নারীদের জন্যই নয়। আপনিও এবার থাকুন এক ধাপ এগিয়ে। পুরুষদের জন্য আলাদা প্রসাধনী বাজারে পাওয়া গেলেও নারীদের জন্য তৈরিকৃত যে কোনো মেকআপ প্রসাধনী পুরুষরাও ব্যবহার করতে পারবেন নিশ্চিন্তে।

ফিচার ইমেজ: Man For Himself

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.