২০১৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত নেটফ্লিক্সের সেরা ৫টি টিভি সিরিজ

স্যাক্রেড গেমস; Source : pinterest.com

আমেরিকান অনলাইন মিডিয়া সার্ভিস নেটফ্লিক্স এখন বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয়। এ স্ট্রিমিং সার্ভিসটি বর্তমানে ধীরে ধীরে বাংলাদেশেও জনপ্রিয়তা লাভ করছে। তবে নেটফ্লিক্স ব্যবহারকারীদের প্রতিনিয়তই এক মধুর সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। নেটফ্লিক্সের সার্ভারে হাজারো মুভি এবং টিভি সিরিজের সমারোহে তারা যেন অনেকটা খেই হারিয়ে ফেলেন, কোনটা ছেড়ে কোনটা দেখবেন।

নেটফ্লিক্সে নতুন পুরাতন অসাধারণ সব মুভি এবং সিরিজের সংখ্যা যেমন অনেক,তেমনি তাদের নিজস্ব প্রযোজনার সংখ্যাও নেহায়েত কম নয়। প্রতিনিয়তই নেটফ্লিক্সের প্রযোজনায় তৈরি হচ্ছে উন্নতমানের সব বিনোদনের উৎস। এর মধ্যে অনেক জনপ্রিয় এবং পুরুষ্কারপ্রাপ্ত সিরিজও রয়েছে। আজ আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরব ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মুক্তিপ্রাপ্ত সেসব টেলিভিশন সিরিজের কথা যেগুলো না দেখলেই নয়।

মেনিয়্যাক (Maniac)

সাইকোলজিক্যাল ডার্ক কমেডি ঘরানার এ সিরিজটির মূল চরিত্রে রয়েছেন কমেডি মুভির জন্য অধিক পরিচিত অভিনেতা জোনাহ হিল এবং হলিউড অভিনেত্রী এমা স্টোন।

মেনিয়্যাক; Source: indiewire.com

সিরিজটি গড়ে উঠেছে আ্যানি ল্যান্ডসবার্গ নামক এক যুবতী ও ওয়েন মিলগ্রাম নামে এক যুবককে ঘিরে। বোনের মৃত্যুশোকে কাতর আ্যানি এবং সিজোফ্রেনিয়ায় আক্রান্ত রোগী ওয়েনের কোনো পূর্বপরিচয় না থাকলেও ভাগ্যক্রমে এক প্রকার নতুন ওষুধের উপর পরীক্ষা নিরীক্ষা চালানোর জন্য তারা দুজনেই একটি কোম্পানির দ্বারা চুক্তিবদ্ধ হয়। তবে রহস্যময় সেই তিনটি পিলকে ঘিরেই ঘটতে থাকে অদ্ভুত ও মজার সব ঘটনা।

দ্য গুড কপ (The Good Cop)

এক বাবা ও তার ছেলের মজার সব কাহিনী ঘিরে গড়ে উঠেছে এ সিরিজটি। তবে বলে রাখা ভালো এটি কোনো সরল শিশুতোষ গল্প নয়,বরং শিশুতোষ থেকে যোজন দূরের ঘটনাই বলা চলে।

দ্য গুড কপ; Source: netflix.com

আ্যান্থনি ‘টনি’ কারুসো সিনিয়র একজন সাবেক পুলিশ অফিসার। দুর্নীতির দায়ে ধরা পড়ে সাত বছরের জেল খাটা এ রগচটা প্রৌঢ় অফিসারের নখদর্পনে অপরাধ জগতের সকল খবর। নিজেকে আবারো পুলিশ অফিসার হিসেবে প্রমাণ করতে তিনি বদ্ধপরিকর।

পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে পুত্র আ্যান্থনি ‘টি জে’ কারুসো জুনিয়রও নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টের একজন অফিসার। কিন্তু পিতা-পুত্র দুজনে যেন দুই বিপরীত মেরুর বাসিন্দা। পিতা টনি অফিসার হিসেবে যতটাই উগ্র পুত্র টি জে ঠিক ততটাই শান্ত-শিষ্ট। পিতা ও পুত্রের এ আজব জুটি নিউইয়র্কের অপরাধ দমনে কতটা সক্রিয় থাকে তা জানতে আপনাকে চোখ রাখতে হবে নেটফ্লিক্সের পর্দায়। সেপ্টেম্বরের ২১ তারিখে সিরিজটির প্রথম সিজন মুক্তি পেয়েছে।

স্যাক্রেড গেমস (Sacred Games)

ভারতে নিজেদের জনপ্রিয়তা বাড়াতে বদ্ধপরিকর নেটফ্লিক্সের এ বছরের অন্যতম সফলতার নাম স্যাক্রেড গেমস। সাইফ আলি খান, রাধিকা আপ্তে ও নওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকী অভিনীত এ সিরিজটি গতানুগতিক বলিউডি ফর্মুলা ছুঁড়ে ফেলে দিয়ে সকলকে যেন তাক লাগিয়ে দিয়েছে।

স্যাক্রেড গেমস; Source : pinterest.com

সাইফ আলি খানের পড়ন্ত ক্যারিয়ারে এক নতুন মোড় এনে দিয়েছে দুর্নীতির বিরুদ্ধে ধুঁকতে থাকা সৎ পুলিশ অফিসার সারতাজ সিংয়ের চরিত্রটি। সে সাথে নওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকীর গ্যাংস্টার গণেশ গাইতোন্ডে চরিত্রে সাবলীল অভিনয় সিরিজটিকে এক ভিন্ন মাত্রায় নিয়ে গিয়েছে। আর সোনায় সোহাগা হিসেবে অনুরাগ কাশ্যপের নির্দেশনা তো আছেই। সব মিলিয়ে স্যাক্রেড গেমস ইন্ডিয়ার তথাকথিত হিন্দি সিরিয়ালের জগতে যে গল্পভিত্তিক ও মানসম্মত টিভি সিরিজের এক নতুন ধারার সূচনা করলো এ ব্যাপারে কারো কোনো সন্দেহ নেই।

ঘৌল (Ghoul)

নেটফ্লিক্স ইন্ডিয়া আর রাধিকা আপ্তে এ দুটি নাম যেন দিনে দিনে সমার্থক হয়ে উঠছে। এখন পর্যন্ত নেটফ্লিক্স প্রযোজিত তিনটি ভারতীয় সিরিজের প্রত্যেকটিতে যে নামটি দৃশ্যমান তা হল রাধিকা আপ্তে। লাস্ট স্টোরিজ, স্যাক্রেড গেমসের পর এ অভিনেত্রী হাজির হয়েছেন ঘৌল সিরিজটিতে।

ঘৌল; Source: imdb.com

তিনি সিরিজটির মূখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন। নিদা রহিম নামের এ চরিত্রটি একজন সৎ মিলিটারি অফিসার, যে নিজের কর্তব্য পালনের জন্য নিজ পিতাকেও সরকার বিরোধী মন্তব্যের জন্য আটক করতে পিছপা হন না।

সিরিজটির পটভূমি গড়ে উঠেছে এমন এক কাল্পনিক সময়কে ঘিরে যেখানে ভারতে মৌলবাদ দমনের নামে সরকার সংখ্যালঘু মুসলিমদের দমন করার চেষ্টায় ব্যস্ত। তবে ঘটনা অন্যদিকে মোড় নেয় যখন বিরোধীদের নেতা আলী সাঈদ আটক হয়। এরপর একের পর এক ভুতুড়ে ও অতিপ্রাকৃত ঘটনা ঘটতে থাকে। মাত্র তিন পর্বের হরর থ্রিলার ঘরানার এ সিরিজটির কাহিনী শেষ পর্যন্ত কোথায় গিয়ে দাঁড়ায় তা কোনোভাবেই আগে থেকে অনুমান করা সম্ভব নয়।

প্যারাডাইস পি.ডি (Paradise PD)

আজকের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত একমাত্র কার্টুন সিরিজ এটি। কার্টুন শুনে অনেকে হয়ত নাক সিঁটকাবেন বাচ্চাদের অনুষ্ঠান ভেবে। তবে সিরিজটি দেখলে বুঝবেন সিরিজটি আর যাই হোক না কেন কোনোভাবেই শিশুতোষ নয়।

প্যারাডাইস পি.ডি; Source: hollywoodreporter.com

আ্যাডাল্ট কমেডি ঘরানার সিরিজ প্যারাডাইস পিডি ঘিরে উঠেছে প্যারাডাইস নামের এক কাল্পনিক শহরের পুলিশ ডিপার্টমেন্টকে ঘিরে। পুলিশ ডিপার্টমেন্ট তো নয়, যেন আস্ত এক সার্কাস। পুলিশ চিফ র‍্যান্ডেল ক্রফোর্ডের পুত্র কেভিনের অনেকটা জোরপূর্বক পুলিশে যোগদানের মধ্যে দিয়েই সিরিজটির সুত্রপাত হয়। পুলিশ ডিপার্টমেন্টের বেহাল দশা নিয়ে সদা সংকিত চিফ র‍্যান্ডেলের সাথে রয়েছে আরো কিছু মজার চরিত্র।

আটককৃত মাদকের দায়িত্বে থাকা রকেট নামে একটি কুকুর নিজেই সে মাদক সেবনে ব্যস্ত। এছাড়া রয়েছে বুড়ো অফিসার হপসন, যিনি এতটাই বৃদ্ধ হয়ে গিয়েছেন যে কখন যে কী করে বসেন তার কিছুরই ঠিক নেই। এছাড়া আছে মহিলা অফিসার জিনা, যে কিনা অপরাধীদের যথাযথ আইনের আওতায় আনা থেকে তাদের শায়েস্তা করতেই বেশি আগ্রহী।

আরো আছে ভীতু অফিসার ফিটজেরাল্ড আর খাদক ও বিড়ালপ্রেমী ডাস্টি। এদের মধ্যে একমাত্র কেভিনই প্রকৃতভাবে অপরাধ দমনে আগ্রহী, তবে মাঝে মাঝে তার বোকামিও চোখে পড়ার মতো। এদের সবাইকে নিয়ে ঘটতে থাকে দম ফাটানো হাসির সব ঘটনা। তবে শুধু কমেডি নয়, বরং দর্শকরা থ্রিলারের ছোঁয়াও পাবেন সিরিজটি থেকে। আপনি যদি ডার্ক কমেডি এবং আ্যাডাল্ট কমেডি জনরার ফ্যান হন, তবে সিরিজটি আপনাকে মোটেও হতাশ করবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.