রামি মালেক: হলিউডের নতুন সম্রাট

গত ২৪শে ফেব্রুয়ারি হলিউডের ডলবি থিয়েটারে আয়োজিত হয় অস্কারের ৯১তম আসর। এই আসরে ‘বোহেমিয়ান র‍্যাপসডি’ চলচ্চিত্রে নিজের অসাধারণ অভিনয়ের জন্যে সেরা অভিনেতার পুরষ্কার জেতেন নতুন সেনসেশন রামি মালেক। আর নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন হলিউডের প্রথম সারির একজন অভিনেতা হিসেবে।


রামি মালেক; Source: IMDb

অস্কারের আসরে এটি ছিল মালেকের প্রথম মনোনয়ন। আর প্রথম মনোনয়নেই বাজিমাত করে দেন এই অভিনেতা। ছোট পর্দায় উল্ল্যেখযোগ্য কিছু কাজ করলেও বড় পর্দায় বলার মত তেমন কিছু করতে পারেননি তরুন এই অভিনেতা।

অপরিচিত এক অভিনেতা হয়েও হলিউডের ডাকসাইটে সব অভিনেতাকে হারিয়ে দেন মালেক। অভিনয় জগতে তার পথচলার গল্পটা চলুন জেনে আসা যাক

রামি সাঈদ মালেক, ১৯৮১ সালে লস এঞ্জেলেসের এক মিশরীয় বংশদ্ভূত পরিবারে জন্ম নেন। ইনস্যুরেন্স ব্যাবসায়ী বাবা যুক্তরাষ্ট্রে আসার আগে কায়রোতে ট্যুর গাইডের কাজ করতেন। মা ছিলেন অ্যাকাউন্ট্যান্ট। প্রথাগত কপ্টিক বিশ্বাসে বেড়ে ওঠা রামির একজন যমজ ভাইও আছে। সামি নামের এই ভাইটি তার চেয়ে চার মিনিটের ছোট।

ভাইয়ের সঙ্গে রামি; Source: Digital Spy

ক্যালিফোর্নিয়ার শার্ম্যান ওকসের নটোর ডেম হাই স্কুল থেকে ১৯৯৯ সালে পাশ করেন রামি। সেখানে তার সহপাঠী ছিলেন ‘স্পাইডার-ম্যান’ চলচ্চিত্রের ম্যারি জেন খ্যাত ক্রিস্টেন ডান্সট। ২০০৩ সালে ইউনিভার্সিটি অফ ইভান্সভিল থেকে চারুকলায় ব্যাচেলর ডিগ্রী লাভ করেন তিনি।

২০০৪ সালে টিভি সিরিজ ‘গিলমোর গার্লস’ দিয়ে অভিনয় জীবনে প্রবেশ করেন মালেক। একই বছর ‘হেলো টু’ নামের একটি ভিডিও গেমে বিভিন্ন চরিত্রের পিছনের কন্ঠ দেন তিনি। ২০০৫ সালে ‘দ্য ওয়ার অ্যাট হোম’ টিভি সিরিজে কেনি চরিত্রে অভিনয় করেন মালেক।

গিলমোর গার্লস টিভি সিরিজে রামি; Source: pinterest.com

চলচ্চিত্রের রুপালী পর্দায় মালেকের অভিষেক হয় বেন স্টিলার অভিনীত ‘নাইট অ্যাট দ্য মিউজিয়াম’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে। সেখানে মিশরীয় ফারাও আখমেনরার চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। চলচ্চিত্রটির পরবর্তী দু’টি সিক্যুয়েল, ২০০৯ সালের ‘ নাইট অ্যাট দ্য মিউজিয়ামঃ ব্যাটেল অফ দ্য স্মিথসোনিয়ান’ এবং ২০১৪ সালের ‘ নাইট অ্যাট দ্য মিউজিয়ামঃ সিক্রেট অফ দ্য টুম্ব’ চলচ্চিত্রেও একই চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি।

বেন স্টিলার এবং রবিন উইলিয়ামসের সঙ্গে রামি (ডান থেকে দ্বিতীয়); Source: detroitnews.com

কম্পিউটার হ্যাকারদের নিয়ে তৈরি ড্রামা সিরিজ ‘মিঃ রোবট’ দিয়ে ২০১৫ সালে ক্যারিয়ারে বলার মত ব্রেক থ্রু পান মালেক। সিনিয়র নেটওয়ার্ক ইঞ্জিনিয়ার এলিয়ট অল্ডারসনের চরিত্রে অভিনয় করে সকলের মন কাড়েন এই অভিনেতা। এই চরিত্রে অভিনয়ের জন্যে পান ক্রিটিকস চয়েজ টেলিভিশন অ্যাওয়ার্ড এবং টেলিচিশোনের অস্কারখ্যাত প্রাইম টাইম এমি অ্যাওয়ার্ডস। এছাড়াও মনোনয়ন পান ডোরিয়ান অ্যাওয়ার্ড, স্যাটেলাইট অ্যাওয়ার্ড, গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ড এবং স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড অ্যাওয়ার্ড এর জন্যে।

মি. রোবট টিভি সিরিজে রামি মালেক; Source: ScreenCrush

২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে মুক্তি পায় ‘বাস্টারস মল হার্ট’ । টরেন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে মুক্তি পাওয়া এই চলচ্চিত্রে মালেক প্রথমবার কোন প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন। মজার ব্যাপার হলো, চলচ্চিত্রটিতে একই ব্যাক্তির দ্বৈত জীবন, জোনাহ এবং বাস্টারের ভূমিকা পালন করেন মালেক। ব্যাপক প্রশংসিত হয় তার অভিনয়। এরপর ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে মুক্তি পায় ‘পাপিলন’। ১৯৭৩ সালের পাপিলন ছবির রিমেক এই চলচ্চিত্রটিতে মালেকের সঙ্গে আরো অভিনয় করেন ‘সন্স অফ অ্যানার্কি’ খ্যাত চার্লি হানাম।

পাপিলন চলচ্চিত্রে চার্লি হানামের সঙ্গে মালেক; Source:GeekTyrant

২০১৬ সালের নভেম্বর। গণমাধ্যমে খবর এলো কিংবদন্তি রকস্টার ফ্রেডি মারকিউরি এবং তার ব্যান্ড কুইনকে নিয়ে বানানো হবে একটি বায়োপিক। বায়োপিকটির নাম রাখা হয় কুইনেরই ঐতিহাসিক গানের নামে, ‘বোহেমিয়ান রাপসডি’।

পর্দায় ফ্রেডি মারকিউরিকে যথার্থভাবে ফুটিয়ে তুলতে চেষ্টার কোন কমতি রাখেননি মালেক। ফ্রেডির জীবন যাত্রায় নিজেকে অভ্যস্ত করতে থাকতে শুরু করেছিলেন লন্ডনে। ফ্রেডির ভঙ্গিমায় কথা বলতে নকল দাঁত লাগিয়ে চর্চা করতেন ঘন্টার পর ঘন্টা। দীক্ষা নিয়েছেন গান গাওয়া এবং পিয়ানো বাজানোয়।

বোহেমিয়ান রাপসডি চলচ্চিত্রে রামি; Source: theguardian.com

এছাড়াও পলি বেনেট নামে একজন পেশাদার মুভমেন্ট কোচকে নিয়োগ দিয়েছিলেন ফ্রেডির মত হাঁটাচলার ভঙ্গি আয়ত্ত করতে। বেনেটকে সাথে নিয়ে প্রতিদিন চারঘন্টা করে ফ্রেডির পুরনো ভিডিও দেখতেন। ১৯৮৫ সালের লাইভ এইড কন্সার্টে কুইন ব্যান্ডের পার্ফরমেন্সের ভিডিও ইউটিউবে দেখেছেন প্রায় দেড় হাজার বার।

ফ্রেডির চরিত্রে রামি; Source:The Hook

কুইন ব্যান্ডের লীড গিটারিস্ট ব্রায়ান মে প্রায়ই চলচ্চিত্রটির শ্যুটিং দেখতে যেতেন। মালেকের অভিনয়ের প্রশংসা করে তিনি জানান,

আমরা প্রায়ই ভুলে যেতাম এটা ফ্রেডি নয়, বরং রামি।


২০১৮ সালের ২৩ অক্টোবর মুক্তি পায় ‘বোহেমিয়ান রাপসডি’। মুক্তির পর সমালোচকদের প্রশংসা কুড়োনোর পাশাপাশি বক্স অফিসেও ঝড় তোলা এই বায়োপিকটি বিশ্বব্যাপী প্রায় ৮৪৪ মিলিয়ন ডলার কামাই করে। ২০১৮ সালে এর চেয়ে বেশি অর্থ উপার্জন করেছে কেবল পাঁচটি চলচ্চিত্র।

বোহেমিয়ান রাপসডি চলচ্চিত্রের পোস্টার; Source: Amazon.com

আর সবচেয়ে বেশী প্রশংসিত হয় মালেকের অভিনয়। ভক্তদের প্রশংসার পাশাপাশি পেয়ে যান বেশকিছু সম্মানজনক পুরষ্কার। সে সব পুরষ্কারের তালিকায় আছে গোল্ডেন গ্লোব, স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড অ্যাওয়ার্ড, বাফটা অ্যাওয়ার্ড এবং একাডেমী অ্যাওয়ার্ড। সবগুলো পুরষ্কারের মধ্যে হয়তো একাডেমী অ্যাওয়ার্ড বা অস্কারটিকেই সবার উপরে রাখতে চাইবেন রামি।

অস্কার হাতে রামি; Source:Loop

ব্যাক্তিগত জীবনে বেশ লাজুক স্বভাবের মানুষ রামি। সাক্ষাতকারগুলোতেও বেশ রয়ে সয়েই কথা বলতে দেখা যায় তাকে। ‘বোহেমিয়ান রাপসডি’ চলচ্চিত্রের সহ-অভিনেত্রী লুসি বয়ন্টনের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর পর, গর্বের সঙ্গে তা স্বীকারও করেছেন পাম স্প্রিংস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের মঞ্চে।

মিশরীয় ঐতিহ্যে বেড়ে ওঠা রামি, ফ্যাশন আইকন হিসেবেও বেশ জনপ্রিয়। বিখ্যাত জিকিউ ম্যাগাজিনের মধ্যপ্রাচ্যের সংস্করণের প্রচ্ছদেও দেখা গেছে তাকে।

Feature Image: Esquire

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.