কয়েকটি উল্লেখযোগ্য ব্রান্ড এবং তাদের পণ্য

সুন্দর ও মানে উন্নত পোশাক ও জিনিসের প্রতি মানুষের টান থাকে সবসময়। উন্নত ব্রান্ডের প্রতিও তাদের আকর্ষণ তাকে তীব্র। কেননা ব্রান্ড কোম্পানি গুলোর নিজস্ব কিছু বৈশিষ্ট্য রয়েছে। আর বৈশিষ্ট্যের কারণে তারা অন্যান্য ব্রান্ড ও কোম্পানির চেয়ে ভিন্ন হয়। একেক ব্রান্ডের পণ্য একেক রকম। তাদের পোশাকের নকশা, বুনন, কাঁচামাল, বাজারজাতকরণ পলিসি থাকে ভিন্ন। আর ভিন্ন ভিন্ন কৌশল অনুসরণ করে তারা চূড়ান্ত ভোক্তাদের নিকট পণ্য বিক্রয় করে।

দেশে ও বিদেশে জানা অজানা অনেক ব্রান্ড রয়েছে। কিছু কিছু ব্রান্ড তুলনামূলক কম মূল্যে পণ্য বিক্রয় করলেও সব ব্রান্ড তা করে না। তারা পণ্য বিক্রয় করে চড়া মূল্যে। মূল্য চড়া এটি বললে বরং ভুল হবে। কারণ তাদের কাঁচামাল, গুণগত মান ও অন্যান্য কিছু মিলিয়ে দাম বেশি হওয়াটাই স্বাভাবিক। আপনি হয়তো এখন ঐসকল ব্রান্ড থেকে অর্থের অভাবে কোনো পণ্য কিনতে পারছেন না। তবে ব্যবসা কিংবা চাকরিতে সফল হলে নিশ্চয় কিনতে পারবেন। জেনে নিন কয়েকটি উল্লেখযোগ্য ব্রান্ড এবং তাদের পণ্য সম্পর্কে।

গুচি লোফারস

আরামদায়ক জুতো ও ফ্যাশনেবল জুতো হিসেবে লোফার অসাধারণ। নিত্যদিন ব্যবহারের জন্য এবং বাইরে বেড়াতে যাওয়ার জন্য লোফার উপযুক্ত জুতো। গুচি ব্রান্ডের লোফারসের এক অনন্য সুনাম রয়েছে। এই ব্রান্ডের প্রতিটি লোফার ব্যবসা করে চলছে সমান তালে।

লোফারস; Source: fashionbeans.com

গুচির লোফারগুলো রুচিবান ব্যক্তিদের পছন্দ। এর পেছনে বড় কারণ হলো এর স্থায়িত্ব ও অভিনব নকশা। গুচি লোফারগুলো পরতে ভালবাসে বড় বড় সেলিব্রেটি, অভিনেতা, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ এবং খেলোয়াড়রা। তাদের প্রথম পছন্দ গুচি ব্রান্ডের লোফারস তা বলার অপেক্ষা রাখে না।  

অ্যাকনি স্টুডিওস জিন্স

অ্যাকনি স্টুডিও একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্রান্ড। এরা অনেক বছর ধরে সুনামের সাথে ব্যবসা করে চলছে। এদের জিন্স অসাধারণ। অ্যাকনি স্টুডিওসের জিন্স নিয়ে অনেকের প্রত্যাশা বেশি। তারা এত বেশি সফল যে প্রতি বছরে দুইশত মিলিয়ন বা তার বেশি আয় করে। তারা যেকোনো বয়সের পুরুষকে টার্গেট করে জিন্স তৈরি করলেও বেশি প্রাধান্য দেয় তরুণদের। তরুণরা আরামদায়ক ও ফ্যাশনেবল জিন্স এখান থেকে কিনতে পারে।

জিন্স; Source: fashionbeans.com

১৯৯৭ সালে এর প্রতিষ্ঠাতা প্রথমে একশত জিন্স তৈরি করে বন্ধুবান্ধব ও আত্মীয় স্বজনদের কাছে বিক্রয় করে। এই ব্রান্ডের প্রতিটি জিন্সে সিম্পল ও ডাবল সেলাই থাকে। ডাবল সেলাইয়ের জিন্সগুলো দেখতে বেশ ভালো লাগে। তাদের কাঁচামাল হলো ডেনিম। সারা পৃথিবী ব্যাপী ডেনিমের প্যান্ট সবাই পরে। এই ব্রান্ড প্রতি বছর দুইবার প্যারিসে শো করে।

রালফ লরেন্ট অক্সফোর্ড শার্ট

আমেরিকান প্রিপেইডের প্রতিষ্ঠাতা রালফ লরেন অতি সুক্ষ্ম মাথায় তার ব্রান্ডের নামকরণ করেছেন। তিনি ব্রান্ডের লোগো ডিজাইন করেছেন সচেতনভাবে। রালফ লরেন্ট অক্সফোর্ড শার্টগুলো খুব ভালো। এদের নকশা, বুনন, রঙের ব্যাপারগুলো চমৎকার।

শার্ট; Source: fashionbeans.com

তারা অধিকাংশ শার্ট তৈরি করে ব্যান্ড কলারের। তাছাড়া চাকুরিজীবী ও ব্যবসায়ী লোকেরা এ ব্রান্ডের শার্ট পরতে ভালবাসে। এদের শার্টের রং নির্বাচনগুলো এত ভালো যে, সবাই এদের শার্ট পরতে পারে এবং গায়ের রঙের সাথে মানিয়ে যায়।

সেইন্ট লরেন্টের লেদার জ্যাকেট

শীতকালীন দেশগুলোতে সেইন্ট লরেন্টের লেদার জ্যাকেটগুলো তুমুল জনপ্রিয়। বাংলাদেশেও শীতকালের প্রচণ্ড শীত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য লেদার জ্যাকেট ব্যবহার করে। কেননা এতে রয়েছে ওম ও উষ্ণতা।

লেদার জ্যাকেট; Source: fashionbeans.com

তরুণরা শীতকালে নানা ধরনের ফ্যাশন করতে চায়। আর ফ্যাশনের সঙ্গে মিল রেখেই ফ্যাশন হাউজ ও ব্রান্ডগুলো নতুন পোশাক বাজারে আনে। সেইন্ট লরেন্টের লেদার জ্যাকেটগুলো খুব ভালো। এর পণ্যগুলো স্থায়িত্ব ভালো হয়। তাছাড়া এদের মান ভালো হয়। সেইন্ট লরেন্টের লেদার জ্যাকেটগুলো যেকোনো পেশার মানুষ পরতে পারে। অফিসেও যাওয়া যায় জ্যাকেটগুলো পরে। জ্যাকেটগুলো দেখতে স্মার্ট ও সুন্দর।

বারবেরি ট্রেঞ্চ কোট

শীতকালীন দেশগুলোতে শীতের তীব্রতা থাকে অনেক বেশি। আর সেসব দেশে তাপমাত্রা মাইনাসে থাকে এবং তুষার পড়ে। বারবেরি ট্রেঞ্চ কোটগুলো ফরাসিদের বিলাসিতায় ঐতিহ্যগতভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। ব্রিটিশরা পণ্যের গুণগত মান সম্পর্কে বেশ ভালো জানেন। বারবেরি ট্রেঞ্চ থেকেও অন্যান্য আরো বেশি ধারণা রাখে পণ্য সম্পর্কে।

ট্রেঞ্চ কোট; Source: fashionbeans.com

বারবেরি ট্রেঞ্চ কোট বহু বছর থেকে মানুষের হৃদয় জয় করে চলছে। এই কোটগুলো পানিতে নষ্ট হয় না, এর মধ্যে দিয়ে আলো বাতাস সহজে চলাচল করতে পারে। ট্রেঞ্চ কোটগুলোর বুনন ও গুণগত মান বেশ ভালো। বুবারি একই নকশা অনুযায়ী ট্রেঞ্চ কোট তৈরি করেছিলেন যুদ্ধে অবস্থানের জন্য। যুদ্ধ শেষ হলে এ নকশাটি ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে যায়।

রোলেক্স ডাইভিং ওয়াচ

গত শতাব্দীতে যে হাতঘড়ি গুলো তুমুল জনপ্রিয় ছিল সেগুলোর মধ্যে রোলেক্স ডাইভিং ওয়াচ অন্যতম। সকল ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন পুরুষ রোলেক্সের ডাইভিং ওয়াচকে বেছে নিয়েছেন। এটি প্রথম ১৯৫৩ সালে বাজারে আসে এবং এটি সম্পূর্ণ পানি প্রতিরোধক ঘড়ি।

হাতঘড়ি; Source: fashionbeans.com

১০০ মিটার গভীরে গেলেও এর কোনো ক্ষতি হয় না। যদিও এই ঘড়ির ডিজাইন করা হয়েছিল স্কুবা ডাইভিঙের জন্য। তবে এর অনন্য বৈশিষ্ট্য ও আকর্ষণীয় প্রদর্শনের জন্য সবার কাছে গ্রহণযোগ্যতা পায়। এটি দেখতে খুব ক্লাসিক এবং এতে আড়ম্বরতা নেই।

লুইস ভুটন লাগেজ

কোথাও বেড়াতে যাওয়া এবং দেশের বাইরে যাওয়ার সময় লাগেজ ও স্যুটকেসের তীব্র প্রয়োজনীয়তা অনুভব করতে হয়। অনেক লাগেজ আছে যেগুলো অল্পতেই নষ্ট হয়ে যায়। লুইস ভুটন লাগেজগুলো খুব ভালো।

লাগেজ; Source: fashionbeans.com

অনেক আগে থেকে তারা সকলের কাছে পরিচিত। বর্তমানে তাদের সুন্দর ছাপা, মান ও বুননের জন্য সুপরিচিত হয়ে উঠেছে। সেলিব্রেটিরা ও বড় মাপের মানুষেরা লুইস ভুটনের লাগেজ পছন্দ করে।

Featured Image Source: fashionbeans.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.